• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ৫ রবিউল সানি ১৪৪০

কিশোরগঞ্জ জেলা প্রশাসক

প্রক্সি পরিক্ষার্থীর বিষয়ে নিয়মিত মামলা হবে

সংবাদ :
  • জেলা বার্তা পরিবেশক, কিশোরগঞ্জ

| ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৩ মার্চ ২০১৮

কিশোরগঞ্জে প্রশাসনের অফিস সহায়কসহ ৬৬টি শূন্য পদে শুক্রবার লিখিত নিয়োগ পরীক্ষা চলাকালে দুজন বুয়েট ও একজন ঢাবি শিক্ষার্থীসহ ৬ জন প্রক্সি পরীক্ষার্থীকে আটক করে ভ্রাম্যমাণ আদালত কারাগারে পাঠিয়েছেন। যেসব মূল পরীক্ষার্থী এসব প্রক্সি পরীক্ষার্থীকে ভাড়া করেছিলেন, এবার তাদের বিরুদ্ধে সদর থানায় নিয়মিত মামলার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে বলে জেলা প্রশাসক মো. সারয়োর মুর্শেদ চৌধুরী জানিয়েছেন। রোববার কালেক্টরেট সম্মেলন কক্ষে জেলা আইনশৃংখলা কমিটির মাসিক সভায় এ সংক্রান্ত প্রশ্নের জবাবে কমিটির সভাপতি হিসেবে তিনি এই ঘোষণা দেন।

জেলা প্রশাসনের অফিস সহায়কসহ ৫টি পদের বিপরীতে ৬৬ জন লোক নিয়োগ দেয়া হবে। এর জন্য শুক্রবার লিখিত পরীক্ষা ছিল। শহরের কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত লিখিত পরীক্ষায় মোট ৬ হাজার ৪৯৭ জন চাকরি প্রার্থী অংশ নেন। এদের মধ্যে বুয়েটের ছাত্র বরগুনা শহরের বাসিন্দা ফারদিন হাসান (২৫), বুয়েটের ছাত্র রংপুরের বদরগঞ্জের বাসিন্দা ফয়সল সরকার (২৪), ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র নেত্রকোনার মোহনগঞ্জের বাসিন্দা মো. আনোয়ার হোসেন (২৬), কিশোরগঞ্জ সরকারি গুরুদয়াল কলেজের ছাত্র জেলার মিঠামইনের চানপুর গ্রামের শফিকুল ইসলাম সুমন (২৪), জেলার নিকলীর দৌলতপুর গ্রামের মো. শরীফুল ইসলাম (২৪) ও জেলার হোসেনপুরের দক্ষিণ পানান গ্রামের মো. আব্দুল কাদির (২৬) মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে অন্যের বদলে প্রক্সি পরীক্ষার্থী হিসেবে প্রবেশপত্রে নিজেদের ছবি লাগিয়ে লিখিত পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিলেন। মূল আবেদনপত্রের ছবির সঙ্গে তাদের প্রবেশপত্রের ছবি এবং চেহারার মিল না থাকায় এরা পরিদর্শকদের হাতে ধরা পড়েন। এরপর সিনিয়র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবু তাহের মো. সাঈদের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত সবাইকে দেড় মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড দিয়ে কারাগারে পাঠিয়ে দেন। শনিবার দৈনিক সংবাদে এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদনও ছাপা হয়েছিল।