• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১১ ভাদ্র ১৪২৫, ২৪ জিলহজ ১৪৪০

পীরগঞ্জে আদালতের রায় অমান্য করে জমি দখল

সংবাদ :
  • প্রতিনিধি, পীরগঞ্জ (রংপুর)

| ঢাকা , সোমবার, ১১ ফেব্রুয়ারী ২০১৯

রংপুরের পীরগঞ্জে অদালতের রায় অমান্য করে টিনের বেড়া দিয়ে জমি দখল করে ঘিরে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার প্রথমডাঙ্গা গ্রামে গত ১১ জানুয়ারি মান্নাও মমতাজরা বিবদমান এই জমি বেদখল করে। মান্না-মমতাজ গংদের সঙ্গে আব্দুল হালিমের জমি সংক্রান্ত বিরোধ ও মামলা মোকদ্দমা চলে আসছে দীর্ঘদিন।

ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার ও এলাকাবাসী জানায়, উপজেলার শানের হাট ইউনিয়নের প্রথমডাঙ্গা গ্রামের মৃত সেরাজ উদ্দিনের পুত্র মান্না মিয়া তার প্রতিপক্ষ হালিম গংদের ৭২ শতাংশ জমি দীর্ঘদিন থেকে অবৈধভাবে জোরপূর্বক ভোগদখল করে আসছিল। এ নিয়ে একাধিকবার শালিস বৈঠকে ফয়সালা না হওয়ায় বিগত ২০০৭ সালে পীরগঞ্জ সহকারী জজ আদালতে একটি বাটোয়ারা মামলা করেন হালিম। যার নং ৭০১/০৭। ওই মামলায় ২০১০ সালে বাদী হালিম ডিক্রি লাভ করেন। ওই ডিক্রি জারি মামলায় বিজ্ঞ আদালত কমিশন নিয়োগ করে ২০১৬ সালের ৯ই মে জমির দিক ও সীমানা নির্ধারণ করে ঢাক-ঢোল পিটিয়ে গ্রামবাসীর উপস্থিতিতে জমির দখল হালিম বরাবর বুঝিয়ে দেয়া হয়। এরপর হালিম মিয়া শান্তিপূর্ণভাবে ওই জমি ভোগদখল করে আসছে। এদিকে গত ১১ই জানুয়ারি স্থানীয় কতিপয় প্রভাবশালী ব্যক্তির নেতৃত্বে হালিম মিয়ার ওই জমিটি টিন দিয়ে সিমানা ঘিরে দখলে নেয় মান্নারা। এতে জমিতে থাকা ফসলের ক্ষতি হয়। হালিম মিয়া জানান, এখন আমি খুবই নিরাপত্তাহীন অবস্থায় আছি। এর আগেও তারা নিজেদের বাড়িতে আগুন লাগিয়ে আমাদের বিরুদ্ধে মামলা করেছিল। অভিযোগের তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই জানে আলম বলেন, ঘটনার দিন দুপুরের পর প্রথম ডাঙ্গায় সংঘর্ষের খবর পেয়ে ওসির নির্দেশে ফোর্সসহ সেখানে গিয়ে ছিলাম। মূলত কোন সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেনি। তবে বিবাদমান জমির মাপযোগ করেছে উভয় পক্ষ। এ সময় স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গরা উপস্থিত ছিল। শানেরহাট ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান (মন্টু) বলেন, প্রথম ডাঙ্গার জমি সংক্রান্ত বিরোধ নিয়ে আদালতে মামলা বিচারাধীন রয়েছে। ওই জমি মাপ যোগ করার কথা শুনেছি। তবে কোন সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেনি। পীরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সরেস চন্দ্র বলেন, প্রথম ডাঙ্গা গ্রামে জমি দখল সংক্রান্ত খবর পেয়ে শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রাখার স্বার্থে তদন্তকারী কর্মকর্তাসহ ফোর্স পাঠিয়েছিলাম।