• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ৯ রবিউস সানি ১৪৪২

পাথরঘাটায় অজ্ঞাত রোগে মৃত এক আক্রান্ত ১৬

সংবাদ :
  • প্রতিনিধি, পাথরঘাটা (বরগুনা)

| ঢাকা , শনিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২০

বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলার সদর ইউনিয়নের টেংরা এলাকায় মানিক মিয়া (৩০) নামে এক ব্যক্তির অজ্ঞাত রোগে মৃত্যু হয়েছ। একই রোগে আরো ১৬ জন আক্রান্ত হয়েছে। এদের মধ্যে ১৩ জন পাথরঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি আছে এবং ৩ জনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বাড়িতে পাঠানো হয়েছে।

মৃত মো. মানিক মিয়া (৩০) টেংরা এলাকার ইদ্রিস হাওলাদারের ছেলে তিনি পেশায় একজন জেলে শ্রমিক ছিলেন।

রোগে আক্রান্তরা হলো, মোসা. পিয়ারা বেগম (৪০), মো.নাঈম (১৪), মোসা. শাহিনুর (২৬), মোসা. সারমিন (২৬), মোসা. তামান্না (১৪), মোসা. নাসরিন (২৭), মোসা. ইমা (১২), মো. জারিফ (৮), মোসা. দীনা (৮), মোসা. মুক্তা (২২), শাহারিন (১১), মোসা. জান্নাতী (৯), মো. মিরাজ (৩২), মোসা. জহুরা (৮০),মো. নাজমুল (৩০), মোসা. লিপি (৩০)। তাদের সকলের বাড়ি একই এলাকায়।

স্বাস্থ্যকমপ্লেক্স সূত্রে জানা গেছে, সদর ইউনিয়নের টেংরা গ্রাম থেকে গত বুধবার ৮জন ও বৃহস্পতিবার ৫ জন পাথরঘাটা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি হয়। যারা হাসপাতালে এসেছে তদের মধ্যে অনেকেই জ্বর বমি, পাতলা পায়খানার সমস্যা নিয়ে এসেছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত মঙ্গলবার রাতে ওই এলাকার ইদ্রিস হাওলাদারের ছেলে মানিক মিয়া পাথরঘাটা বাজার থেকে বাড়িতে গেলে প্রথমে পাতলা পায়খানা হয়। পরে রাতের মধ্যে তিনি দুর্বল হয়ে পরলে বুধবার দুপুরের দিকে তাকে পাথরঘাটা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নিয়ে আসার পথে তার মুত্যু হয়। এঘটনায় অত্র এলাকায় প্রায় ৮ জন লোক অসুস্থ হয়ে পড়লে তাদেরও দ্রুত স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নিয়ে আসা হয়। মৃত্যু মানিকের বাবা ইদ্রিস হাওলাদার বলেন, আমার ছেলের শরীরে কাপুনি দিয়েই অসুস্থ হয়ে পরে। আমাদের এলাকায় নলকূপ বা নিরাপদ পানি না থাকার কারণে পুকুরের পানি পান করে থাকি।

পাথরঘাটা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প. প. কর্মকর্তা আবুল ফাত্তাহ জানান, একই এলাকার ১২ জন চিকিৎসার জন্য ভর্তি হয়েছেন। একজনের মৃত্যু হয়েছে, বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখা হচ্ছে। তবে পরীক্ষা ছাড়া কিছুই বলা যাচ্ছে না।

বরগুনা জেলা সিভিল সার্জন হুমায়ুন শাহিন খান বলেন, আমরা মৃত্যু মানিকের বাড়ি গিয়ে পরির্দশন করে এসেছি। তিনি অজ্ঞাত রোগে মারা গেছে বলে প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে।