• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯, ৫ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬, ২২ রবিউল আওয়াল ১৪৪১

গৌরনদী বাজারে হামলা ভাঙচুর : আহত ১০

সংবাদ :
  • প্রতিনিধি, গৌরনদী (বরিশাল)

| ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

পুলিশের অভিযানে আট জুয়াড়িকে আটক করাকে কেন্দ্র করে স্থানীয় দুই গ্রুপের মধ্যে বাগ্বিতন্ডার একপর্যায়ে গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ফিল্মি স্টাইলে বাজারে ঢুকে ১০ ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে আহত করা হয়েছে। এ সময় একটি দোকানে লুটপাটেরও খবর পাওয়া গেছে।

হামলায় গুরুতর আহত একজনকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যদের স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। ঘটনাটি ঘটেছে গৌরনদী উপজেলার বিল্বগ্রাম বাজারে। হামলার প্রতিবাদে এক ঘণ্টা বাজারের সকল দোকানপাট বন্ধ রেখে বিক্ষোভ করেছেন ব্যবসায়ীরা। খবর পেয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দা মনিরুন নাহার মেরী, ইউপি চেয়ারম্যান সৈকত গুহ পিকলু ও থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে হামলাকারীদের বিচারের আশ^াস দেয়ার পর বাজারের পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলার নরসিংহলপট্টি এলাকা থেকে আট জুয়াড়িকে আটক করে থানা পুলিশ। জুয়াড়িদের আটকের বিষয়ে সরকারি গৌরনদী কলেজের সাবেক জিএস জাহিদুল ইসলাম ও স্থানীয় আরিফ সরদারের হাত রয়েছে এমন অভিযোগে জুয়াড়িদের স্বজনদের সঙ্গে জাহিদুল ও আরিফের বাগ্বিত-া হয়। এ ঘটনার জের ধরে ওইদিন সন্ধ্যায় জাহিদুল ইসলামের নেতৃত্বে ২০-২৫ জন কিশোর লাঠিসোঠা নিয়ে বিল্বগ্রাম বাজারে ফিল্মি স্টাইলে সালাম সরদার নামের এক যুবকের ওপর হামলা চালায়। এসময় ওই যুবক হামলাকারীদের হাত থেকে প্রান বাঁচাতে বাজারের আসমা ফার্মেসিতে আশ্রয় নেয়।

হামলাকারীরা ওই ফার্মেসির মধ্যে ঢুকে সালামকে এলোপাতাড়িভাবে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। এ সময় হামলাকারীরা ওই ফার্মেসিতে লুটপাট করে। হামলা ও লুটপাট ঠেকাতে গিয়ে ফার্মেসির মালিক মশিউর রহমান ঝন্টুসহ বাজারের ১০ ব্যবসায়ী আহত হয়।

বাজারের ব্যবসায়ীরা অবিলম্বে সিসিটিভির ফুটেজ দেখে হামলাকারীদের আইনের আওতায় আনার জন্য প্রশাসনের প্রতি আহ্বান করেছেন। অন্যথায় তারা কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করবেন বলেও উল্লেখ করেন। হামলা ও লুটপাটের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন জাহিদুল ইসলাম।

এ ব্যাপারে গৌরনদী মডেল থানার ওসি গোলাম ছরোয়ার জানান, খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর আগেই হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। হামলার ঘটনায় থানায় কেউ লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।