• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বৃহস্পতিবার, ০১ অক্টোবর ২০২০, ১৩ সফর ১৪৪২, ১৬ আশ্বিন ১৪২৭

আওয়ামী লীগের বড় জয় প্রত্যাশা বেড়েছে ভোটারের

সংবাদ :
  • প্রতিনিধি, ফুলপুর (ময়মনসিংহ)

| ঢাকা , শুক্রবার, ০৪ জানুয়ারী ২০১৯

সদ্য সমাপ্ত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ময়মনসিংহ ১ হালুয়াঘাট ধোবাউরা ময়মনসিংহ ২ ফুলপুর তারাকান্দা-এ অবহেলিত চার উপজেলায় এবার বড় জয় পেয়েছে ক্ষমতাশীল আওয়ামী লীগ মনোনীত মহাজোট প্রার্থী। হালুয়াাঘট ও ধোবাউরা উপজেলা নিয়ে গঠিত ময়মনসিংহ-১ আসন থেকে সাবেক মন্ত্রী এডভোকেট প্রমোদ মানকিন এর সন্তান বর্তমান এমপি জুয়েল আরেং, ফুলপুর ও তারাকান্দা উপজেলা নিয়ে গঠিত ময়মনসিংহ-২ আসন থেকে ভাষা সৈনিক শামছুল হকের ছেলে শরীফ আহমেদ নির্বাচনে তাদের প্রয়াত বাবার ইমেজ, আধিপত্য, তরুণদের সমর্থন, ছাড়াও চলমান সরকারের সামাজিক নিরাপত্তা ও উন্নয়ন কর্মসূচি কাজে লাগিয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তাই তাদের কাছে এ এ অঞ্চলের দলীয় নেতাকর্মীসহ ভোটারদের প্রত্যাশাও অনেক বেশি। তাদের সমর্থন দেয়া ভোটাররা চায় দলীয় ইস্ততেহার ঘোষিত সব সুযোগ-সুবিধার সফল বাস্তবায়ন, দলীয় নেতাকর্মীদের মূল্যায়ন, স্থানীয় সমস্যাগুলের সমাধান। এ চার উপজেলার কতগুলো কমন সমস্যা রয়েছে। এগুলো হলো, ঢাকা-হালুয়াঘাট মহাসড়কের ফুলপুর থেকে হালুয়াঘাট অংশ রাস্তার বেহাল দশা, ধোবাউড়া-তারাকান্দা সড়কের গোয়াতলা বাজার থেকে তারাকান্দা বাসস্ট্যান্ড পর্যন্ত ২১ কিলোমিটার সড়কের বেহাল দশা। ফুলপুর থেকে হালুয়াঘাট পর্যন্ত মহাসড়কের এ অংশের বেশিরভাগ স্থানের পিচ ও ইট উঠে ছোট-বড় অসংখ্য গর্তের সৃষ্টি। ঢাকা-হালুয়াঘাট ও ঢাকা-শেরপুর মহাসড়কের ফুলপুর হয়ে শেরপুর পর্যন্ত উন্নয়ন হলেও ফুলপুর হতে হালুয়াঘাট অংশের অবস্থা বনর্তমানে খুবই নাজুক। বাস, মাইক্রোবাস, মোটরসাইকেলে, সিএনজি অটোসহ সকল যে যানবাহনেই যাত্রীদের দুর্ভোগের সীমা থাকে না। বিশেষ করে শিশু, বৃদ্ধ, রোগী, সন্তানসম্ভবা মা’দের অবস্থা কষ্টদায়ক হয়ে পড়ে।

অপরদিকে তারাকান্দা-গোয়াতলা ধোবাউরা রাস্তার একই অবস্থা বিরাজমান। এ মহাসড়ক সামান্য বৃষ্টিতে রাস্তার গর্তগুলোতে পানি জমে জলাবদ্ধতা তৈরি হয়। কাদামাটি ও ধুলোবালিতে সড়কটি খানাখন্দে ভরে গেছে। ফলে যানবাহন চলাচল করতে গিয়ে প্রায়ই গাড়ি অচল হয়ে পড়ে। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েন এ সড়কে যাতায়াতকারী যাত্রীরা। ময়মনসিংহ জেলার সীমান্তবর্তী দুই উপজেলা ধোবাউড়া ও তারাকান্দার গুরুত্বপূর্ণ সড়ক এটি। এ সড়কের মাধ্যমে দুই উপজেলাবাসী জেলা সদরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে যাতায়াত করে থাকে। বর্তমানে সড়কের গোয়াতলা বাজার থেকে তারাকান্দা বাসস্ট্যান্ড পর্যন্ত ২১ কিলোমিটার বেহাল। এর মধ্যে তারাকান্দা বাসস্ট্যান্ড পর্যন্ত আধা কিলোমিটার সড়কের অবস্থা অসহনীয়। ফুলপুর-হালুয়াঘাট মহাসড়কের বেহাল দশার কারণে জনগণের চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন। খানাখন্দ আর বিভিন্ন স্থানে ছোট বড় গর্ত সৃষ্টি হওয়া সত্ত্বেও এ সড়ক দিয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে এলাকার কয়েক লাখ মানুষের। হালুয়াঘাট, ধোবাউড়া ঘোষগাও, কলসিন্দুরের মানুষকে প্রতিনিয়ত যাতায়াত করতে হয় এসব ভাঙা সড়ক দিয়ে। হালুয়াঘাট উপজেলায় গোবরাকুড়া ও কড়াইতলি দুটি স্থলবন্দর রয়েছে। এখানেও রয়েছে বেশ কয়েকটি সংযোগ সড়ক। স্থলবন্দর দিয়ে প্রতিদিন কয়েক শত কয়লা ও পাথর ভর্তি ট্রাক চলাচল করে। প্রতিবছর হচ্ছে প্রায় শত কোটি টাকা রাজস্ব আদায় হলেও রাস্তাগুলো বেহালই রয়ে গেছে।

ফুলপুর উপজেলা ফুলপুর বালিয়া সড়ক, ফুলপুর নারিকেলী বাজার সড়কের উন্নয়ন চায় জনগণ। ফুলপুর হালুয়াঘাটের সীমান্ত দিয়ে বয়ে যাওয়া কংশ নদীর ভাঙন, এ নদীর ডেফুলিয়া ঘাট ও শাকুয়াই ঘাট দুই উপজেলার দুঃখ হয়ে আছে। এ নদীতে বেড়িবাঁধ নির্মাণ হলে নদীভাঙন থেকে বেঁচে যাবে অনেক বাড়িঘর ও ফসলি জমি। ফুলপুরের ডেফুলিয়া বাজার ও হালুয়াঘাটের শাকুয়াই বাজারসংলগ্ন কংশনদীর ঘাটে দুইটি বড় ব্রিজ হলে দুই উপজেলার লাখ লাখ মানুষের যাতায়ত সুবিধা বাড়বে।

দুই নির্বাচনী আসনের বেশ কয়েকজন সচেতন ভোটারদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, তারা চায় উপজেলা সদরে গ্যাস সংযোগ, সড়কগুলোর উন্নয়ন গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি ব্রিজ নির্মাণ, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানগুলোর উন্নয়নসহ সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির সুবিধাভোগীর সংখ্যা ও আওতা বাড়ানো এবং বেকার সমস্যার সমাধান। ফুলপুরবাসীর একটি নতুন দাবি, ময়মনসিংহ নতুন বিভাগ ও তারাকান্দা নতুন উপজেলা হওয়ার পর থেকে জোড়ালো হচ্ছে। তা হলো ফুলপুর, হালুয়াঘাট, ধোবাউড়া ও তারাকান্দা উপজেলা নিয়ে ফুলপুরকে জেলা ঘোষণা করা। ময়মনসিংহ-১ ও ময়মনসিংহ-২ আসনের বেশ কিছু ভোটারের সঙ্গে কথা বললে তারা জানান, এই চারটি উপজেলার সমস্যাগুলো চিহ্নিত করে সমন্বিত উদ্যোগের মাধ্যমে সমাধানের পদক্ষেপ নিবেন বলে তারা আশা করেন।