• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

মঙ্গলবার, ১৪ জুলাই ২০২০, ৩০ আষাঢ় ১৪২৭, ২২ জিলকদ ১৪৪১

৯০ ভাগ কারখানায় ছুটি কার্যকর : বিজিএমইএ

    সংবাদ :
  • অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক
  • | ঢাকা , সোমবার, ৩০ মার্চ ২০২০

করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের এই সময়ে নির্দেশনা মেনে ৯০ ভাগ পোশাক কারখানায় সাধারণ ছুটি কার্যকর হয়েছে বলে জানিয়েছে বিজিএমইএ। পোশাক কারখানা মালিকদের সংগঠনটি বলছে, যেসব কারখানা চালু আছে সেগুলো চিকিৎসা সামগ্রী তৈরি ও জরুরি বিদেশি ক্রয়াদেশ বাস্তবায়নের কাজে যুক্ত রয়েছে।

গত শনিবার রাতে বিজিএমইএর ক্রাইসিস ম্যানেজমেন্ট বিভাগের কর্মকর্তা মনসুর খালেদ গণমাধ্যমকে বলেন, এমনিতে কারখানাগুলোতে ক্রয়াদেশ নেই। তারপরেও সরকার ও বিজিএমইএ কর্তৃপক্ষের পরামর্শে ২৭ তারিখেই ৮০ শতাংশ কারখানায় ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। আজকে কিছু কারখানা চালু হলেও কিছু কারখানায় শ্রমিকদের কাজের প্রতি অনীহার কারণে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। কোথাও জোর করে কাজ করানো হচ্ছে বলে শুনিনি বা অভিযোগ পাইনি।

রপ্তানিমুখী পোশাক কারখানা মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএর অধীনে ৩২০০ পোশাক কারখানা রয়েছে। এই হিসাবের বাইরেও অনেক কারখানা রয়েছে যারা এসব কারখানার হয়ে পোশাক তৈরি করে দিয়ে থাকে। তালিকার বাইরে থাকা কারখানাগুলোর বিষয়ে সরাসরি কোন সিদ্ধান্ত দেয় না বিজিএমইএ। এদিন সকালে মিরপুর ১০ নম্বর গোল চত্বরের কাছে সিরাজ গার্মেন্টস নামের এমনই একটি কারখানা চালু হওয়ার পর শ্রমিকরা ছুটির দাবিতে বিক্ষোভ শুরু করে। পরে পুলিশের মধ্যস্থতায় সেখানে ছুটি ঘোষণা করা হয়।

করোনাভাইরাসের কারণে বিশ্বব্যাপী যে অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে তাতে আক্রান্ত হয়েছে বাংলাদেশের রপ্তানিমুখী পোশাক খাতও। দেশের প্রধান রপ্তানি লক্ষ্য ইউরোপ ও আমেরিকার দেশগুলো এখন কার্যত অবরুদ্ধ। এই পরিস্থিতির কারণে পোশাকের নতুন ক্রয়াদেশ দীর্ঘ দিন ধরে থেমে গেছে। আগেই যেসব ক্রয়াদেশ এসেছিল তাও একের পর এক বাতিল বা স্থগিত করে দিচ্ছেন ক্রেতারা। বিজিএমইএর সর্বশেষ হিসাব অনুযায়ী, এক হাজার ৮টি কারখানায় প্রায় তিন বিলিয়ন (২ দশমিক ৭৯ বিলিয়ন) ডলারের ক্রয়াদেশ বাতিল কিংবা স্থগিত করা হয়েছে। ফলে এসব কারখানার ২০ লাখের বেশি শ্রমিক কর্মহীনতার ঝুঁকিতে রয়েছেন।