• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯ মহররম ১৪৪২, ১০ আশ্বিন ১৪২৭

সূচকের সঙ্গে বেড়েছে লেনদেনও

    সংবাদ :
  • অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক
  • | ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ০৬ আগস্ট ২০২০

image

গত মঙ্গলবারের মতো গতকালও উত্থানে শেষ হয়েছে শেয়ারবাজারের লেনদেন। এদিন উভয় শেয়ারবাজারের প্রধান প্রধান সূচক বেড়েছে। সূচকের সঙ্গে বেড়েছে টাকার পরিমাণে এবং বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর। ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই ও সিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৮.০৪ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ৩০৭.১৫ পয়েন্টে। ডিএসইর অপর সূচকগুলোর মধ্যে সিডিএসইটি ১.৯৯ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮৪৭.৯২ পয়েন্টে। অপর সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ২.২৮ পয়েন্ট এবং ডিএসই-৩০ সূচক ২.৪৭ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে ৯৯৭.৪২ পয়েন্টে এবং ১৪৫২.৪১ পয়েন্টে। ডিএসইতে গতকাল ৭১৮ কোটি ৩৪ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে যা আগের দিন থেকে ৪১ কোটি ৬৯ লাখ টাকা বেশি। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ৬৭৬ কোটি ৬৫ লাখ টাকার। ডিএসইতে গতকাল ৩৫২টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ১৫৫টির বা ৪৪.০৩ শতাংশের, শেয়ার দর কমেছে ১২৩টির বা ৩৪.৯৪ শতাংশের এবং ৭৪টির বা ২১.০২ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৪৩.৫৬ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১২ হাজার ২৩০.২৫ পয়েন্টে। সিএসইতে গতকাল ২৬৪টি প্রতিষ্ঠান লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১১৩টির দর বেড়েছে, কমেছে ৯০টির আর ৬১টির দর অপরিবর্তিত রয়েছে। সিএসইতে ১৭ কোটি ৪০ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।

গতকাল ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ব্লক মার্কেটে ২৫টি কোম্পানি লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব কোম্পানির সাড়ে ২৯ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিগুলোর ৯২ লাখ ২৫ হাজার ৯০৮টি শেয়ার ২০৫ বার হাত বদল হয়েছে। এর মাধ্যমে কোম্পানিগুলোর ২৯ কোটি ৫৬ লাখ ৫৮ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি অর্থাৎ ৫ কোটি ৩২ লাখ ১৪ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে এসকে ট্রিমসের। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৫ কোটি ২৩ লাখ ৬৬ হাজার টাকার ব্র্যাক ব্যাংকের এবং তৃতীয় সর্বোচ্চ ৩ কোটি ৭ লাখ ৬২ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে এনসিসি ব্যাংকের।

এছাড়া উত্তরা ব্যাংকের ১০ লাখ ৫৮ হাজার টাকার, ইউনিক হোটেলের ২০ লাখ ৫৮ হাজার টাকার, সামিট পাওয়ারের ২ কোটি ৫২ লাখ ৭০ হাজার টাকার, স্ট্যান্ডার্ড সিরামিকের ২৬ লাখ ৯৯ হাজার টাকার, স্কয়ার ফার্মার ৫৫ লাখ ২২ হাজার টাকার, সাউথইস্ট ব্যাংকের ১১ লাখ ৪৫ হাজার টাকার, সিঙ্গারের ১ কোটি ৫৬ লাখ ৬২ হাজার টাকার, সী পার্লের ১ কোটি ৪০ লাখ ১০ হাজার টাকার, সাইফ পাওয়ারের ১০ লাখ ৯৫ হাজার টাকার, কুইনসাউথের ১২ লাখ ৫০ হাজার টাকার, প্রিমিয়ার ব্যাংকের ৫৮ লাখ ৪৮ হাজার টাকার, ওরিয়ন ইনফিউশনের ৯৮ লাখ ৪১ হাজার টাকার, আইএলএফএসএলের ১৩ লাখ ৫৮ হাজার টাকার, আইএফআইসির ২০ লাখ ২১ হাজার টাকার, ফু-ওয়াং ফুডের ১ কোটি ১৯ লাখ ২০ হাজার টাকার, এক্সিম ব্যাংকের ৮ লাখ ৫৫ হাজার টাকার, ইস্টার্ন ইন্স্যুরেন্সের ১২ লাখ ৭৫ হাজার টাকার, কপারটেকের ১৩ লাখ ৮৬ হাজার টাকার, বিএসআরএম স্টিলের ৫৬ লাখ ৩৬ হাজার টাকার, বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবলের ১ কোটি ৬৩ লাখ ৩৬ হাজার টাকার, ব্রিটিশ আমেরিকান ট্যোবাকোর ১ কোটি ৯৮ লাখ ১৯ হাজার টাকার এবং এসিআইয়ের ১ কোটি ৩২ লাখ ৫০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।