• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

মঙ্গলবার, ০৭ জুলাই ২০২০, ২৩ আষাঢ় ১৪২৭, ১৫ জিলকদ ১৪৪১

সূচকের উত্থান উভয় শেযারবাজারে

    সংবাদ :
  • অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক
  • | ঢাকা , মঙ্গলবার, ৩০ জুন ২০২০

image

গত রোববারের মতো গতকালও উত্থানে শেষ হয়েছে শেয়ারবাজারের লেনদেন। এদিন উভয় শেয়ারবাজারের প্রধান প্রধান সূচক বেড়েছে। তবে টাকার পরিমাণে লেনদেন আগের দিন থেকে কমেছে। আর লেনদেনে অংশ নেয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর কমেছে। ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই ও সিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৭.৪১ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ৯৮১.৬৪ পয়েন্টে। ডিএসইর অপর সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ১.৮২ পয়েন্ট, ডিএসই-৩০ সূচক ২.৭৮ পয়েন্ট এবং সিডিএসইটি ২.১৭ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে ৯২৩.৫৬ পয়েন্টে, ১৩৩৫.৫১ পয়েন্টে এবং ৭৯০.১৭ পয়েন্টে। ডিএসইতে গতকাল ১৫৪ কোটি ৬৬ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। যা আগের দিন থেকে ২ হাজার ৩৮৮ কোটি ৫৯ লাখ টাকা কম। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ২ হাজার ৫৪৩ কোটি ২৫ লাখ টাকার। ডিএসইতে গতকাল ২৯৮টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ৪০টির বা ১৩.৪২ শতাংশের, শেয়ার দর কমেছে ১৯টির বা ৬.৩৭ শতাংশের এবং ২৩৯টির বা ৮০.২০ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ২৪.৭৯ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১১ হাজার ৩০৮.৮১ পয়েন্টে। সিএসইতে গতকাল ১৩৮টি প্রতিষ্ঠান লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ২৯টির দর বেড়েছে, কমেছে ১৩টির আর ৯৬টির দর অপরিবর্তিত রয়েছে। সিএসইতে ৭৮ কোটি ৫৭ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।

গতকাল ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ব্লক মার্কেটে ৩৬টি কোম্পানি লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব কোম্পানির ৬৯ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিগুলোর ৭৫ লাখ ৭০ হাজার ১৪৬টি শেয়ার ৬৯ বার হাত বদল হয়েছে। এর মাধ্যমে কোম্পানিগুলোর ৬৯ কোটি ১৯ লাখ ৫৪ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি অর্থাৎ ৩৬ কোটি ৭৩ লাখ ১১ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে গ্ল্যাক্সোস্মিথক্লাইনের। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৪ কোটি ১২ লাখ ২২ হাজার টাকার রেনেটার এবং ৬ কোটি ৮৯ লাখ ৯৬ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে ব্যাংক এশিয়ার।

এছাড়া এডিএন টেলিকমের ১৪ লাখ ৮৮ হাজার টাকার, আমান ফিডের ১১ লাখ ২৯ হাজার টাকার, বিকন ফার্মার ৫ লাখ ১৩ হাজার টাকার, বার্জার পেইন্টসের ৫০ লাখ ৮০ হাজার টাকার, বেক্সিমকো ফার্মার ৫ লাখ ১০ হাজার টাকার, ডেল্টা ব্র্র্যাক হাউজিংয়ের ২১ লাখ ৭৫ হাজার টাকার, ড্রাগন সোয়েটারের ৬ লাখ ২ হাজার টাকার, ইভিন্স টেক্সটাইলের ৮ লাখ ৩০ হাজার টাকার, গ্রামীণফোনের ১ কোটি ৫৪ লাখ টাকার, গ্রামীণ ওয়ান : স্কিম টু’র ৫ লাখ ৪২ হাজার টাকার, আইএফআইসি ব্যাংকের ১১ লাখ ৩১ হাজার টাকার, কোহিনুর কেমিক্যালের ১৪ লাখ ২৪ হাজার টাকার, লাফার্জহোলসিমেরে ৫ লাখ ৩ হাজার টাকার, মার্কেন্টাইল ইন্স্যুরেন্সের ৬০ লাখ ৭০ হাজার টাকার, মেট্রো স্পিনিংয়ের ৩১ লাখ ৭৭ হাজার টাকার, এমজেএল বিডির ২৯ লাখ ৯২ হাজার টাকার, এমএল ডাইংয়ের ২৭ লাখ ৪৮ হাজার টাকার, নাভানা সিএনজির ৬ লাখ ৬০ হাজার টাকার, অলিম্পিক এক্সেসরিজের ৩৭ লাখ ৮১ হাজার টাকার, অলিম্পিকের ৭১ লাখ ৪৭ হাজার টাকার, ওরিয়ন ইনফিউশনের ১১ লাখ ৩০ হাজার টাকার, পপুলার লাইফ ইন্স্যুরেন্সের ১ কোটি ৭ লাখ ৯৬ হাজার টাকার, প্রগ্রেসিভ লাইফ ইন্স্যুরেন্সের ৬ লাখ ৫১ হাজার টাকার, সায়হাম কটনের ৯ লাখ ১০ হাজার টাকার, সিলভা ফার্মার ১৯ লাখ টাকার, সিঙ্গার বিডির ৪২ লাখ ৪ হাজার টাকার, শাহজিবাজার পাওয়ারের ১ কোটি ৫৬ লাখ ৬৯ হাজার টাকার, স্কয়ার ফার্মার ৮৫ লাখ ৬৪ হাজার টাকার, স্ট্যান্ডার্ড সিরামিকের ৬০ লাখ ৯৫ হাজার টাকার, স্ট্যান্ডার্ড ইন্স্যুরেন্সের ১০ লাখ টাকার, ইউনিয়ন ক্যাপিটালের ২০ লাখ টাকার, ইউনাইটেড পাওয়ারের ২৫ লাখ ১৮ হাজার টাকার এবং ভিএফএস থ্রেড ডাইংয়ের ১০ লাখ ৮৭ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।