• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

শনিবার, ২৪ আগস্ট ২০১৯, ৯ ভাদ্র ১৪২৫, ২২ জিলহজ ১৪৪০

শিল্প নগরীসমূহের জন্য ওয়ানস্টপ সার্ভিস চালু করা হবে : শিল্পমন্ত্রী

সংবাদ :
  • অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

| ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০১৯

শিল্পনগরীসমূহের প্রয়োজনীয় সেবা দ্রুত প্রদান করতে ওয়ান স্টপ সার্ভিস স্থাপন করা হবে। দেশের সম্ভাবনাময় শিল্পখাতসমূহের বিকাশে সরকারি সহায়তা আরও কার্যকরভাবে প্রদানের লক্ষ্যে ওয়ানস্টপ সেন্টারসমূহ কাজ করবে। গত রোববার বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে বৈশাখী মেলা-১৪২৬ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন এসব কথা বলেন।

বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন (বিসিক) ও বাংলা একাডেমি যৌথভাবে ১০ দিনব্যাপী এ মেলার আয়োজন করে। ১৪ এপ্রিল হতে ২৩ এপ্রিল পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত বৈশাখী মেলা অনুষ্ঠিত হবে। বিসিকের চেয়ারম্যান মো. মোশতাক হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার, সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ, শিল্পসচিব মো. আবদুল হালিম, সংস্কৃতি বিষয়ক সচিব ড. মো. আবু হেনা মোস্তফা কামাল ও জাতীয় ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প সমিতি বাংলাদেশের সভাপতি মীর্জা নুরুল গনি শোভন।

শিল্পমন্ত্রী বলেন, শিল্পখাতের সমস্যাসমূহ নিরসনে সরকার আন্তরিকভাবে কাজ করছে। আমলাতান্ত্রিক জটিলতা এড়িয়ে শিল্প উদ্যোক্তাদের সমস্যাসমূহ দ্রুত সমাধান করতে হবে। শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার বলেন, ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প পণ্যের বিদেশি ক্রেতা বৃদ্ধির জন্য আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরসমূহে এসব পণ্যের প্রদর্শনী ও বিক্রয়ের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তিনি এসব পণ্যের ডিজাইন ও মান আন্তর্জাতিক মানে উন্নীত করার ওপর জোরারোপ করে বলেন, প্রতিটি গ্রামে শহরের সুবিধাসমূহ প্রসারিত করতে স্থানীয় শিল্পের বিকাশের মাধ্যমে অর্থনৈতিক কার্যক্রম আরও গতিশীল করতে। ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পের উদ্যোক্তাদের জন্য আর্থিক সহায়তা আরও সহজলভ্য করতে হবে। শিল্পসচিব বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশে শিল্পখাতের বিকাশে অনুকূল পরিবেশ বিরাজ করছে। এই পরিবেশকে কাজে লাগিয়ে বাংলাদেশ প্রতিবেশী দেশসমূহের তুলনায় দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। অনুষ্ঠানে ৬৫ জন কারুশিল্পীর মধ্যে প্রতিযোগিতার মাধ্যমে বিজয়ী ৯ জনকে কারুশিল্পী পুরস্কার-১৪২৫ প্রদান করা হয়। এদের মধ্যে ১ জনকে কারুরত্ন ও ৮ জনকে কারুগৌরব পুরস্কার প্রদান করা হয়। কারুরত্ন পুরস্কার লাভ করেন নারায়ণগঞ্জের পরেশ চন্দ্র দাস। কারুগৌরব পুরস্কারপ্রাপ্তরা হলেন, ঢাকার অনুপ নাগ ও সানজানা হোসেন, রংপুরের মো. আনোয়ার হোসেন, বান্দরবানের কাঁসি চন্দ্র ত্রিপুরা, নারায়ণগঞ্জের হোসনে আরা বেগম, বান্দরবানের জিং চেওময় বম, রাজশাহীর সুবোধ কুমার পাল ও যশোরের খন্দকার আহাদুজ্জোহা।