• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

রবিবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮ মহররম ১৪৪২, ০৯ আশ্বিন ১৪২৭

বৈদেশিক অর্থ ছাড় কমেছে ৬ কোটি ডলার

সংবাদ :
  • অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

| ঢাকা , শুক্রবার, ২৫ অক্টোবর ২০১৯

গত অর্থবছরের চেয়ে চলতি বছর ২০০ কোটি ডলার বেশি ছাড় করার লক্ষ্যমাত্রা ছিল। তবে প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই- সেপ্টেম্বর) অর্থ ছাড়ে গত অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় প্রায় ৬ কোটি ডলার কমেছে।

অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) সর্বশেষ প্রতিবেদন অনুযায়ী, চলতি ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকে সব দাতা দেশ ও সংস্থা মিলে বাংলাদেশের অনুকূলে ৯৪ কোটি ডলার ছাড় করেছে। চলতি অর্থবছরের জন্য দাতাদের কাছ থেকে ৮৪৭ কোটি ডলার ছাড় করার লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে। গত অর্থবছরে এই লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৬৩৫ কোটি ডলার। যদিও শেষ পর্যন্ত ৬২০ কোটি ডলার ছাড় করা সম্ভব হয়েছিল।

ইআরডির ফাবা অনুবিভাগের অতিরিক্ত সচিব পেয়ার মোহাম্মদ গণমাধ্যমকে বলেন, দাতারা ঋণ চুক্তি করে প্রকল্পের বিপরীতে। তাই প্রকল্প বাস্তবায়নের গতি বাড়লে অর্থছাড়ও বাড়বে। চলতি অর্থবছরের প্রথম তিন মাসে লক্ষ্য অনুযায়ী বৈদেশিক সহায়তার প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে পারেনি বলে এবার অর্থছাড়ও পিছিয়ে।

অর্থছাড় কমলেও প্রথম প্রান্তিকে গত অর্থবছরের তুলনায় প্রায় ২০ কোটি ডলার বেশি প্রতিশ্রুতি আদায় করা সম্ভব হয়েছে। এবারের প্রথম তিন মাসে দাতাদের কাছ থেকে ২০১ কোটি ৬৭ লাখ ডলারের প্রতিশ্রুতি পাওয়া গেছে। গত অর্থবছরের একই সময় পর্যন্ত প্রতিশ্রুতি পাওয়া গিয়েছিল ১৮২ কোটি ডলারের। এদিকে সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত দাতাদের পুঞ্জিভূত পাওনা থেকে বাংলাদেশ ৪৯ কোটি ৫১ লাখ ডলার পরিশোধ করেছে। গত অর্থবছরের একই সময়ে দাতাদের কাছে বাংলাদেশ ৪৪ কোটি ৩৩ লাখ ডলার পরিশোধ করেছিল।