• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল ২০২১, ৩ বৈশাখ ১৪২৮ ৩ রমজান ১৪৪২

ফেইসবুক-গুগলকে করের আওতায় আনায় পাল্টা প্রতিশোধ যুক্তরাষ্ট্রের

সংবাদ :
  • সংবাদ ডেস্ক

| ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ০৮ এপ্রিল ২০২১

image

ফেইসবুক, গুগল ও অ্যামাজনের মতো ইন্টারনেট ভিত্তিক কোম্পানিগুলোকে করের আওতায় আনায় প্রতিশোধমূলক শুল্কারোপ করছে যুক্তরাষ্ট্র। সম্প্রতি ছয়টি দেশ, যুক্তরাজ্য, ইতালি, স্পেন, তুরস্ক, ভারত ও অস্ট্রিয়া যুক্তরাষ্ট্রের মালিকানাধীন এসব কোম্পানিকে করের আওতায় এনেছে। তাই যুক্তরাষ্ট্রও পাল্টা শুল্কারোপ করছে এসব দেশের উপর। এ শুল্কের পরিমাণ বার্ষিক প্রায় শত কোটি ডলার হতে পারে। মার্কিন বাণিজ্য প্রতিনিধি অফিসের (ইউএসটিআর) প্রকাশিত নথি অনুযায়ী, এক্ষেত্রে অস্ট্রিয়ান গ্র্যান্ড পিয়ানো ও ব্রিটিশ নাগরদোলা থেকে তুর্কি কার্পেট এবং ইতালিয় ছোট মাছ পর্যন্ত বার্ষিক ২৫ শতাংশ শুল্কের মুখোমুখি হতে পারে। ব্লুমবার্গ।

মার্কিন সংস্থাগুলোকে করের আওতায় নিয়ে আসা ছয়টি দেশের ওপরই ইউএসটিআর শুল্ক আরোপের প্রস্তাব করেছে। ব্লুমবার্গের হিসাব অনুযায়ী, মার্কিন সংস্থাগুলোয় আরোপিত করের মোট বার্ষিক মূল্য প্রায় ৮৮ কোটি ডলার। অর্থনৈতিক সহযোগিতা ও উন্নয়ন সংস্থা (ওইসিডি) প্রতিটি স্বতন্ত্র দেশের ডিজিটাল কর একটি বৈশ্বিক মানে নিয়ে আসার চেষ্টা করছে। যদিও সংস্থাটি এখনও চুক্তিতে পৌঁছতে পারেনি। যুক্তরাষ্ট্র জানিয়েছে, তারা ওইসিডির কার্যক্রম সমর্থন করে। তবে তারা শুল্কসহ বিকল্পগুলোও বজায় রাখবে।

নির্দিষ্ট সার্চ ইঞ্জিন, সোস্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম ও অনলাইন মার্কেটপ্লেসগুলোর আয়ের ওপর ২ শতাংশ কর আরোপ করছে যুক্তরাজ্য। ডিজিটাল সেবা থেকে ৫০ কোটি পাউন্ডের বেশি এবং যুক্তরাজ্যে নির্দিষ্ট ডিজিটাল পরিষেবা থেকে ২ কোটি ৫০ লাখ পাউন্ডের বেশি আয় করা সংস্থাগুলো এ করের আওতায় আসবে। ইউএসটিআরের অনুমান মার্কিন সংস্থাগুলো থেকে যুক্তরাজ্য বার্ষিক ৩২ কোটি ৫০ লাখ ডলার আয় করতে পারে। অন্যদিকে শিল্প সরবরাহ, মেকআপ, প্রসাধনী, পোশাক, নাগরদোলা ও অন্যান্য বিনোদন সম্পর্কিত পণ্য মার্কিন শুল্কের মুখোমুখি হবে।

আগের বছর বিশ্বজুড়ে ৭৫ কোটি ইউরোর অধিক এবং ইতালিতে ডিজিটাল পরিষেবা থেকে ৫৫ লাখের বেশি আয় করা প্রতিষ্ঠানগুলো ইতালিতে ডিজিটাল করের আওতায় আসবে। ইউএসটিআরের অনুমান অনুযায়ী, মার্কিন সংস্থাগুলোকে ইতালির সরকারকে বার্ষিক প্রায় ১৪ কোটি ডলার পরিশোধ করতে হবে। যুক্তরাষ্ট্রের শুল্কের মুখোমুখি হতে যাওয়া সম্ভাব্য ইতালিয় পণ্যগুলোর মধ্যে রয়েছে ক্যাভিয়ার, হাতব্যাগ, স্যুট ও নেকটাই।

স্পেন অনলাইন বিজ্ঞাপন পরিষেবা, অনলাইন মধ্যস্থতাকারী পরিষেবা ও ডাটা ট্রান্সমিশন পরিষেবা সম্পর্কিত নির্দিষ্ট কিছু ডিজিটাল পরিষেবা থেকে আয়ের ওপর ৩ শতাংশ কর আরোপ করেছে। বিশ্বজুড়ে ৭৫ কোটি ইউরোর অধিক এবং নির্দিষ্ট ডিজিটাল পরিষেবা থেকে ৩০ লাখের বেশি আয় করা সংস্থাগুলোকে এ কর দিতে হবে। এক্ষেত্রে মার্কিন সংস্থাগুলোকে বার্ষিক প্রায় ১৫ কোটি ৫০ লাখ ডলার কর পরিশোধ করতে হবে। অন্যদিকে চিংড়ি ও পাদুকা পণ্যগুলো যুক্তরাষ্ট্রের শুল্কের আওতায় পড়তে পারে।

ডিজিটাল পরিষেবা থেকে আগের বছর বিশ্বজুড়ে ৭৫ কোটি ইউরো এবং তুরস্কে ২ কোটি লিরার বেশি আয় করা সংস্থাগুলোর ওপর ডিজিটাল কর আরোপ করছে তুরস্ক। এক্ষেত্রে মার্কিন সংস্থাগুলোকে বার্ষিক প্রায় ১৬ কোটি ডলার কর গুণতে হবে। অন্যদিকে তুরস্কের কারপেট, হাতে বোনা কারপেট ও সিরামিট টাইলের মতো পণ্যগুলো মার্কিন শুল্কের মুখোমুখি হবে।

ডিজিটাল প্লাটফর্ম পরিষেবা, ডিজিটাল কনটেন্ট বিক্রি, কোন সংস্থার নিজস্ব পণ্যের ডিজিটাল বিক্রি, ডাটা ও সফটওয়্যার সম্পর্কিত পরিষেবাসহ ডিজিটাল পরিষেবা দেয়া বিদেশি সংস্থাগুলোর আয়ের ওপর ২ শতাংশ শুল্ক আরোপ করছে ভারত। এক্ষেত্রে মার্কিন সংস্থাগুলোকে বছরে প্রায় ৫ কোটি ৫০ লাখ ডিজিটাল করের মুখোমুখি হতে হবে। অন্যদিকে চিংড়ি, বাঁশজাতীয় পণ্য, স্বর্ণের গহনা ও বেতের আসবাবের মতো পণ্য আমদানিতে শুল্ক আরোপ করছে যুক্তরাষ্ট্র।

ডিজিটাল বিজ্ঞাপন পরিষেবা থেকে মোট আয়ের ওপর ৫ শতাংশ হারে কর আরোপ করছে অস্ট্রিয়া। বিশ্বজুড়ে ৭৫ কোটি ইউরোর বেশি এবং দেশে ২ কোটি ৫০ লাখের বেশি আয় করা প্রতিষ্ঠানগুলো এ করের আওতায় আসবে। এক্ষেত্রে অস্ট্রিয়ার সরকারকে বার্ষিক প্রায় ৪ কোটি ৫০ লাখ ডলার পরিশোধ করতে হবে মার্কিন সংস্থাগুলোকে।