• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ৩০ চৈত্র ১৪২৭ ২৯ শাবান ১৪৪২

পাঁচ লাখ টাকা পর্যন্ত সঞ্চয়পত্রে ৫ শতাংশ কর : অর্থমন্ত্রী

সংবাদ :
  • অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

| ঢাকা , মঙ্গলবার, ৩০ জুলাই ২০১৯

পাঁচ লাখ টাকা পর্যন্ত সব সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগের ওপর উৎসে কর ১০ শতাংশের পরিবর্তে ৫ শতাংশ করার ঘোষণা দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। গতকাল সোমবার সচিবালয়ে অর্থ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ ঘোষণা দেন। এ সময় জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া উপস্থিত ছিলেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, শিগগিরই এ ব্যাপারে প্রজ্ঞাপন জারি করবে এনবিআর। এছাড়া ৫ লাখের উপরে যাদের সঞ্চয়পত্র থাকবে, তাদের ১০ শতাংশ কর দিতে হবে। তিনি বলেন, প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জন্য সঞ্চয়পত্রের ব্যবস্থা আনা হয়। যাদের জন্য দেয়া হয়েছেম তারা এর সুবিধা পাচ্ছেন না। যারা ধনী, তারাই সঞ্চয়পত্রের সুবিধা নিচ্ছে।

চলতি বছরের ১৩ জুন ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেট ঘোষণার দিন থেকেই মূলত এ বিভ্রান্তির শুরু। অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বাজেট বক্তব্যে কর আরোপ নিয়ে কিছু বলেননি। কিন্তু একই দিন অর্থবিলে সব সঞ্চয়পত্রের সুদের ওপর ১০ শতাংশ উৎসে কর কেটে রাখার ঘোষণা দেওয়া হয়। আগে তা ছিল ৫ শতাংশ। এ নিয়ে সংসদে ও এর বাইরে সমালোচনা হলেও এ বিষয়ে পরিবর্তন ছাড়াই বাজেট পাস করা হয়। ফলে উৎসে কর ১ জুলাই থেকে আরোপ হয়ে যায়। প্রশ্ন ওঠে, এত দিন ৫ শতাংশ উৎসে কর দিয়ে যারা মুনাফা পাচ্ছিলেন কিন্তু মুনাফা তোলেননি, তাদের কত শতাংশ কর দিতে হবে? সরকারের পক্ষ থেকে এখন তা স্পষ্ট করা হয়নি। তাই বিভ্রান্তিও কাটেনি। এ কারণে জুনের শেষ ১৫ দিন বাংলাদেশ ব্যাংক, ডাকঘরসহ সব জায়গায় ছিল বিপুলসংখ্যক গ্রাহকের ভিড়। এমনকি গ্রাহকদের টাকা দিতে রাত ১০টা পর্যন্তও অফিস খোলা রাখতে হয়েছে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সাবেক এক অতিরিক্ত সচিব বলেন, অস্পষ্ট প্রজ্ঞাপনগুলোর কারণে প্রতিবার ভোগান্তি পোহাতে হয়। অথচ দুটি লাইন বাড়িয়ে লিখলেই স্পষ্ট প্রজ্ঞাপন জারি করা সম্ভব। আবার বাজেট পাসের পর জাতীয় সঞ্চয় অধিদফতর ও বাংলাদেশ ব্যাংক প্রজ্ঞাপন জারি করে জানায়, নতুন-পুরনো সব সঞ্চয়পত্রের সুদের ওপর ১০ শতাংশ উৎসে কর বহাল। এতেও আপত্তি অনেকের। কারণ ৩০ জুনের মধ্যে টাকা তুলতে আসতে পারেননি, শুধু এ কারণে তিনি টাকা কম পাবেনÑ সরকারের এই আচরণ অযৌক্তিক মনে করেন অনেক গ্রাহক।